Connect with us
ফুটবল

বিশ্বকাপের চুমু-কাণ্ডে ক্ষুব্ধ স্পেনের প্রধানমন্ত্রী, পদত্যাগের দাবি

spain
পুরষ্কার বিতরণী মঞ্চে নারী ফুটবলারদের জোর করে চুমু খাওয়া নিয়ে এখনো সরগরম ফুটবল বিশ্ব। ছবি-বিবিসি

ইউরোপের দেশগুলোতে ‘চুমু’জটিল বা কঠিন কিছু নয়! সেখানের প্রেমিক-প্রেমিকারা তো রাস্তাঘাটেই চুমু খায়।

তবে, রয়্যাল স্প্যানিশ ফুটবল ফেডারেশনের (আরএফইএফ) প্রেসিডেন্ট রুবিয়ালেসের বিশ্বকাপের মঞ্চের এই আলোচিত চুমু কোনো শিশুতোষ অপরাধ নয়!

সম্মতি না থাকার পরেও নারী ফুটবলারকে জড়িয়ে ধরে তার অন্তরঙ্গভাবে ঠোঁটে চুমু দেয়া নিয়ে শোরগোল এখন ফুটবল বিশ্বে।

এখন ক্ষমা চেয়েও মাফ পাচ্ছেন না রুবিয়ালেস। ফুটবলের রাজার আসনে বসে এই কাণ্ড পছন্দ হয়নি কারও।
দেশ থেকে বিদেশ! বিভিন্নজন বিভিন্ন কটু বাক্যবাণ তো মারছেই, এমনকি অবশেষে চুমু কাণ্ডে রুবিয়ালেসের ওপর ক্ষুব্ধ স্পেনের প্রধানমন্ত্রীও খুলেছেন মুখ।

প্রধানমন্ত্রী বলেন, ‘হারমোসোর ঠোঁটে চুমু খাওয়া অগ্রহণযোগ্য। এক্ষেত্রে শুধু ক্ষমা চাওয়াটাই যথেষ্ট নয়। যা দেখেছি, সেটা খোলাসা করতে হবে তাঁকে। জেতার জন্য মেয়েরা সবকিছু করেছে, তবে রুবিয়ালেসের এই উদ্ভট আচরণ প্রমাণ করে সমতার জন্য অনেক দূর যেতে হবে তাঁকে।’

স্পেনের উপপ্রধানমন্ত্রী ইউলান্দা দিয়াজ ক্ষেপেছেন আরও। রুবিয়ালেসের সরাসরি পদত্যাগই চেয়ে বসেছেন তিনি।
সামাজিক যোগাযোগমাধ্যমে ক্ষুব্ধ প্রতিক্রিয়া ব্যক্ত করেছেন স্পেন সরকারের আরও কয়েকজন মন্ত্রী।

স্পেনের সমঅধিকারমন্ত্রী আইরিন মন্তেরো বলেছেন, প্রতিদিন মেয়েরা যে যৌন সহিংসতার মুখোমুখি হয়, এটি তার একটি রূপ।

দেশটির ক্রীড়ামন্ত্রী মিকুয়েল ইসিতাও সুর মিলিয়েছেন তাদের সাথে। তিন বলেন, হারমোসোকে রুবিয়ালেসের চুমু অগ্রহণযোগ্য।

ঘটনা এতই মারাত্মক আকার ধারন করেছে যে, আরএফইএফ এই বিষয়ে শিঘ্রই জরুরি সভায় বসতে যাচ্ছে ।সেখানে রুবিয়ালেসের ভবিষ্যৎ নিয়ে সিদ্ধান্ত হবে।

মার্কিন গণমাধ্যম সিএনএনের বরাতে জানা গিয়েছে, তাঁর বিরুদ্ধে পদক্ষেপ নিতে পারে স্পেনের ক্রীড়া পরিষদ। বাধ্য হতে পারেন পদত্যাগেও!

আরও পড়ুন : উন্নত চিকিৎসার জন্য এবাদতকে লন্ডনে পাঠাচ্ছে বিসিবি

ক্রিফোস্পোর্টস/২৪আগস্ট২৩/এমএইচ

Click to comment

Leave a Reply

আপনার ই-মেইল এ্যাড্রেস প্রকাশিত হবে না। * চিহ্নিত বিষয়গুলো আবশ্যক।

Focus

More in ফুটবল