Connect with us
ফুটবল

আরব্য রজনীতে মেসি–রোনালদোদের ৯ গোলের রোমাঞ্চকর রূপকথা

মেসি-রোনালদো দ্বৈরথ রোমাঞ্চে পরিণত হয়েছে। ছবি- গুগল

একেই কী বলে, আরব্য রজনীর রূপকথা! প্রীতি ম্যাচ হলেও লিওনেল মেসি ও ক্রিস্টিয়ানো রোনালদো দ্বৈরথ উত্তাপ ছড়িয়েছে অনেক আগেই, সেই উত্তাপ রোমাঞ্চে পরিণত হয়েছে ম্যাচ শুরুর হতে হতেই।

ম্যাচের প্রথম মিনিট থেকেই শুরু হয় টান টান উত্তেজনা আর শুরুতেই গোল করেন মেসি। আর কাউন্টার অ্যাটাকে সমতায় ফেরান ক্রিশ্চিনো রোনালদো।

এদিকে রিয়াদের কিং ফাহাদ স্টেডিয়ামে পিএসজি ও রিয়াদ অল স্টারের প্রীতি ম্যাচটি মাঠে গড়ানোর ৪৫ মিনিটেই ঘটে যায় ‘অপ্রীতিকর’ ঘটনা। লাল পেয়ে বসেন পিএসজির জোয়ান বের্নাত।

অপরদিকে প্রথমার্ধের যোগ করা সময়ে নেইমারের পেনাল্টি মিস করেন পরে বিরতিতে যাওয়ার আগে রোনালদোর দ্বিতীয় গোলে দুদলের সমতায় শেষ হয় প্রথমার্ধ।

হাফ টাইম শেষে মাঠে নেমেই আরও তিন গোলে নাম লেখান রামোস-এমবাপ্পে।

তবে ৯০ মিনিটের ম্যাচের ৬০ মিনিটের মাথায় রোনালদো-মেসি, নেইমারদের উঠিয়ে নিলে কমে যায় ম্যাচের উত্তাপ। তবে শেষ পর্যন্ত ৫-৪ গোলে পিএসজি এ ম্যাচ জিতে নিয়েছে। তবে আরব্য রজনিতে সব ছাপিয়ে গেছে মেসি-রোনালদোর জাদুর ছোঁয়া। যতক্ষণ তারা দুজন মাঠে ছিলেন সবাইকে মন্ত্রমুগ্ধ করে রেখেছিলেন।

এদিকে ম্যাচ শুরুর আগে চমকে ভরা আয়োজনে ছিল আরেকটি চমক। মেসি-রোনালদো-নেইমার-এমবাপ্পেদের উপস্থিতিতে মাঠে চমক হিসেবে উপস্থিত ছিলেন বলিউডের বিখ্যাত অভিনেতা অমিতাভ বচ্চন।

ম্যাচ শুরুর আগেই বলিউডের ‘শাহেনশাহ’খ্যাত এই অভিনেতার সঙ্গে পরিচয় করিয়ে দেওয়া হয় দুদলের ফুটবলারদের। এ সময় অমিতাভের সঙ্গে মাঠে ছিলেন পিএসজির মালিক নাসের আল-খেলাইফিও।

বৃহস্পতিবার রাত ১১টায় শুরু হওয়া হাই বোল্টেজ ম্যাচে শুরুতে তিন মিনিটের মাথায় গোল করেন আর্জেন্টাইন সুপারস্টার লিওনেল মেসি। নেইমারের সহায়তায় দুর্দান্ত শটটি জালে জড়ান মেসি।

শুরুতে গোল খেয়েই জেগে ওঠে সৌদির। সেরা দুই ক্লাব আল নাসের ও আল হেলালের সমন্বয়ে গড়া দল অল স্টার। রোনালদোর কাউন্টার অ্যাটাক ঠেকিয়ে দেন কেইলর নাভাস। শুরুতে একাধিকবার আক্রমণে গিয়ে পিএসজির রক্ষণে ভীতি ছড়ায় সৌদি একাদশ। এছাড়া ম্যাচের ১৬ মিনিটে নেইমারকে ঠেকিয়ে অল স্টারকে দ্বিতীয় গোল খাওয়া থেকে রক্ষ্যা করে আরবের গোলরক্ষক আল-ওয়াসিস।

৩২ মিনিটের মাঠায় ডি-বক্সে বল ক্লিয়ার করতে গিয়ে রোনালদোকে ফাউল করেন পিএসজি গোলরক্ষক কেইলর নাভাস। পরব নিজের আদায় করা পেনাল্টিতে গোল করে সমতা ফেরান ‘সিআর সেভেন’। তবে ৪৩ মিনিটে ফেরান মার্কিনিউসের গোলে এগিয়ে গেলেক বিরতিতে যাওয়ার আগমুহূর্তে নিজের দ্বিতীয় গোল করে দলকে সমতা ফেরান রোনালদো।

অপরদিকে বিরতির পরও জমে আরব্য রজনীর রোমাঞ্চ। ৫৩ মিনিটে এমবাপ্পের পাস থেকে গোল করে পিএসজিকে ৩-২ গোলে এগিয়ে দেন সার্জিও রামোস। তবে শোধ করতে বেশি সময় নেয়নি অল স্টার।

তবে রূপকথা তখনো বাকি ডি-বক্সের ভেতর হাতে বল লাগিয়ে পিএসজিকে পেনাল্টি উপহার দেয় অল স্টার। পেনাল্টি গোলে পিএসজিকে ৪-৩ গোলে এগিয়ে নেম এমবাপ্পে।

তবে রোমাঞ্চে ভাটা পড়ে ৬২ মিনিটে, রোনালদো, মেসি, এমবাপ্পে, নেইমারকে উঠিয়ে নেওয়া হলে খেলার উত্তাপ কমে।যায়। ম্যাচের ৭৯ মিনিটে একিতিকের গোলে ব্যবধান ৫-৩ করে ফেলে পিএসজি। কিন্তু শেষ দিকে অল স্টার আরও এক গোল শোধ করে তবে ৫-৪ গোলে ম্যাচটি জিতে নেয় পিএসজি।

আরও পড়ুন : সংবাদ সম্মেলন বাতিল করে সংবাদ বিজ্ঞপ্তিতে যা জানাল বাফুফে

ক্রিফোস্পোর্টস/১৯জানুয়ারি২৩/এসএ

Click to comment

Leave a Reply

আপনার ই-মেইল এ্যাড্রেস প্রকাশিত হবে না। * চিহ্নিত বিষয়গুলো আবশ্যক।

Focus

More in ফুটবল