Connect with us
ক্রিকেট

এমন পরিস্থিতিতে আগে কখনো পড়েনি অস্ট্রেলিয়া, দ্বারস্থ হচ্ছে আইসিসির!

australia out controversy
আম্পায়ারের বিতর্কিত সিদ্ধান্তে বিতর্ক তুঙ্গে। ছবি- সংগৃহীত

বিশ্বকাপে সময়টা মোটেই ভালো যাচ্ছে না টিম অস্ট্রেলিয়ার। প্রথম দুই ম্যাচেই হার দিয়ে শুরু করা পাঁচ বারের বিশ্ব চ্যাম্পিয়নদের পয়েন্ট টেবিলে বর্তমান অবস্থান ৯ নাম্বারে। তাদের নিচে আছে শুধু আফগানিস্তান। বিশ্বকাপে এত শোচনীয় অবস্থায় আগে কখনোই দেখা যায়নি অজিদের।

তবে খেলার পাশাপাশি নিজেদের কিছুটা দুর্ভাগাও মনে করতে পারে অস্ট্রেলিয়ার ক্রিকেটাররা। ভারতের বিপক্ষে নিম্ন মানের উইকেটে খেলে হারতে হয়েছে। আর দক্ষিণ আফ্রিকার বিপক্ষে খেলা গতকালের ম্যাচে আম্পায়ারের কিছু বিতর্কিত সিদ্ধান্ত ছিল অজিদের বিপক্ষে।

বিশেষ করে স্টিভেন স্মিথ ও মার্কাস স্টয়নিস এর দেওয়া আউট দুটি। স্টয়নিসের দেওয়া আউটের সিদ্ধান্তের ব্যাপারে আইসিসির দ্বারস্থ হওয়ার কথা জানিয়েছে অস্ট্রেলিয়া।

গতকাল ম্যাচ শেষে সংবাদ সম্মেলনে এসে এমনটাই জানিয়েছেন অজি ব্যাটসম্যান মার্নাস ল্যাবুশেন। প্রোটিয়াদের দেওয়া ৩১১ রানের লক্ষ্য তাড়া করতে নেমে শুরুতেই ব্যাটিং ধ্বসে পড়ে অজিরা। কোন ব্যাটসম্যানই তেমন সেট হতে পারছিলেন না। ইনিংসের ১৮ তম ওভারে আম্পায়ারের বিতর্কিত সিদ্ধান্তে আউট হোন মার্কাস স্টয়নিস। এই আউট নিয়েই মূলত বিতর্কের সৃষ্টি।

রাবাদার করা বলটি লেগ সাইডে খেলার চেষ্টা করেছিলেন স্টয়নিস। তবে বলটি গ্লাভস ছুঁয়ে উইকেট রক্ষকের হাতে গিয়ে পড়ে। আম্পায়ারের কাছে কট বিহাইন্ডের আবেদন করলে তা ফিরিয়ে দেন। পরে রিভিউ নিলে থার্ড আম্পায়ার দেখতে পারেন বল গ্লাভস ছুঁয়েছে এবং স্পাইক ধরা পড়লে থার্ড আম্পায়ার আউটের সিদ্ধান্ত জানান। এ সিদ্ধান্ত নিয়ে শুরু হয়েছে বিতর্ক।

ক্রিকেটের নিয়ম অনুযায়ী, বল গ্লাভসে লাগলেও সেই হাত যদি ব্যাটের সংস্পর্শে তখন না থাকে তবে সেটি আউট হিসেবে গণ্য হবে না। স্টয়নিসের গ্লাভসে বল লাগলেও ভিডিও দেখে মনে হয়েছে বল সংস্পর্শের সময় তার ডান হাত ব্যাটের সংস্পর্শে ছিল না।

ম্যাচ শেষে এ নিয়ে ক্ষুব্ধ প্রতিক্রিয়া ব্যক্ত করেন ল্যাবুশেন। তিনি বলেন, পরে ভিডিও দেখে মনে হয়েছে স্টয়নিসের হাত ব্যাটের সংস্পর্শে ছিল না। আম্পায়ার মাঠে যা করার করেছে। আমরা শুধু তার কাছে জানতে চেয়েছিলাম সাইড এঙ্গেল থেকেও ভিডিওটা দেখা হয়েছে কি না। পরে ভিডিও দেখে মনে হয়েছে ডান হাত ব্যাটের স্পর্শে ছিল না।

আইসিসির কাছে ব্যাখ্যার বিষয়ে তিনি জানান, বিশ্বকাপ এর মত জায়গায় এমন সিদ্ধান্ত সত্যিই দু:খজনক। ম্যাচের ওমন পরিস্থিতিতে সেই সিদ্ধান্ত আমাদের জন্য আরও চাপের সৃষ্টি করেছিল। হ্যা, আমরা ওই আউট না হলে যে জিতেই যেতাম এমন কথা বলছি না কারণ তখনও সেটা অনেক কঠিন হতো। কিন্তু আমরা এই সিদ্ধান্তগুলো ঠিক করতে চাই যেন ভবিষ্যতে আর কাউকে এমন পরিস্থিতিতে পরতে না হয়।

পরে ১৭৭ রানে অল আউট হয়ে ১৩৪ রানের বড় পরাজয়ের স্বাদ পায় অজিরা। বিশ্বকাপের ইতিহাসে এটিই অস্ট্রেলিয়ার সবচেয়ে বড় ব্যবধানে হার।

আরও পড়ুন: কুইন্টন ডি ককে উড়ছে দক্ষিণ আফ্রিকা

ক্রিফোস্পোর্টস/১৩অক্টোবর২৩/এমএস/এসএ

Click to comment

Leave a Reply

আপনার ই-মেইল এ্যাড্রেস প্রকাশিত হবে না। * চিহ্নিত বিষয়গুলো আবশ্যক।

Focus

More in ক্রিকেট